পরিকল্পিতভাবে লাকসামের ইয়াছিনকে হত্যা করে দঃআফ্রিকার সন্ত্রাসীরা

0
653

শাপলা টিভি রিপোর্টঃ
মাত্র তিন বছর আগে নিজের ভাগ্য বদলের আশায় দক্ষিণ আফ্রিকায় এসেছিলেন। নিজের ভবিষ্যত এবং পরিবারের মুখে হাসি ফুটাতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চাকুরি করছিলেন ইয়াছিন।

আজ (১লা নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা দিকে জোহানেসবার্গ শহরের অদুরে ওয়েস্টার্ণ এলাকায় ফারুক মিয়া নামের এক বাংলাদেশী দোকানে ইয়াছিনকে হত্যা করা হয়। সন্ধ্যায় ইয়াছিন যখন ক্যাশ কাউন্টারে ছিলো তখন কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই দুই কৃষ্ণাঙ্গ সন্ত্রাসী ক্যাপ পরিহিত অবস্থায় তার মাথায় গুলি করে। সাথে সাথে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে যায় ইয়াছিন; রক্তে ভেসে যায় ফ্লোর। নির্মম এই হত্যার পরই সন্ত্রাসীরা ক্যাশ লুট করে নিয়ে যায়।

পড়ুনঃ সর্বোচ্চ সতর্কতাই দক্ষিণ আফ্রিকার নিরাপত্তা

নিহত ইয়াছিনের বয়স আনুমানিক ২৮। তিনি কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলার ফুলইয়া গ্রামের আব্দুল বাতেনের পুত্র। নিহত ইয়াছিন অবিবাহিত ছিলেন। তার লাশ দেশে পাঠানোর জন্য প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান ঘনিষ্টজনেরা।

হত্যাকান্ডের ধরণ দেখে বুঝা যায় এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা। সাধারণ ডাকাতিতে সন্ত্রাসীরা এসে আত্মসমর্পন করতে বলে কিন্তু ইয়াছিনের দোকানে প্রবেশ করা মাত্রই গুলি করে; তাও সরাসরি মাথায়। তাছাড়া সন্ত্রাসীদের যাতে চিনতে না পারা যায় সেজন্য কেপ পরে এসেছে। তারা বেশিক্ষণ দোকানে অবস্থান করেনি। গুলি করেই চলে যায়।

এখন পর্যন্ত কোন ক্লু পাওয়া না গেলেও জানা যায়, কিছুদিন পূর্বে কয়েকজন চোর ইয়াছিনের দোকানে ঢুকে তার ব্যবহৃত মুবাইল সহ কিছু জিনিসপত্র নিয়ে যায়। তিনি চোরদের বিরুদ্ধে মামলা করারও প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, চোররা স্থানীয় হতে পারে এবং নিহত ইয়াছিন হয়তো তাদেরকে চিনতেন। উক্ত ঘটনার জের ধরে হয়তো এমন হত্যাকান্ড ঘটতে পারে।

LEAVE A REPLY