অবশেষে করোনা পরীক্ষায় ফি নির্ধারণ করলো বাংলাদেশ সরকার

শাপলা টিভি ডেস্ক:

এখন থেকে আর ফ্রি-তে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা যাবে না। প্রত্যেক নাগরিককেই একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি দিতে হবে। ইতোমধ্যে সেই ফি নির্ধারণ করে পরিপত্র জারি করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। অর্থাৎ এখন থেকে করোনা সংক্রমনের সন্দেহ হলে বাসা বা বাড়ি থেকেই পরীক্ষা করানো যাবে। আবার সরকারি হাসপাতাল ও বুথে গিয়েও নমুনা পরীক্ষা করানো যাবে। তবে দুই ক্ষেত্রেই ফি দিতে হবে।

পরিপত্র অনুযায়ী, সরকারি হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় অথবা বুথে গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করালে ফি ২০০ টাকা দিতে হবে। বাসায় থেকেও নমুনা সংগ্রহ করিয়ে পরীক্ষা করানো যাবে। এক্ষেত্রে ৫০০ টাকা ফি দিতে হবে। অর্থ মন্ত্রণালয় ও সরকারের সম্মতি নিয়ে এই ফি নির্ধারণ করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আব্দুল মান্নান গণমাধ্যমকে বলেন, এতদিন সরকারি হাসপাতাল ও বুথে নমুনা পরীক্ষা (আরটি-পিসিআর টেস্ট) করা হলে কোনো টাকা নেয়া হতো না। তবে এখন থেকে নমুনা পরীক্ষার জন্য একটি ফি নির্ধারণ করেছি। আর সেটা নামমাত্রই নেয়া হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দুটি কারণে ফি নির্ধারণের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। প্রথম কারণটি হচ্ছে, করোনার কারণে সরকারের আয় কমে গেছে। তাছাড়া একেকটি নমুনা টেস্টের পেছনে যে টাকা খরচ হয়, তা বাংলাদেশের মতো দেশে দুই থেকে তিন মাস বিনামূল্যে করা সম্ভব। কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদে কোনোভাবেই সম্ভব নয়। তাই এই ফি নির্ধারণ করা।

দ্বিতীয় কারণটি হচ্ছে, নমুনা পরীক্ষা করতে গিয়ে এর অনেক অপব্যবহার হচ্ছে। বিশেষ করে অনেকের শরীরে করোনার উপসর্গ না থাকলেও বাড়তি সতর্কতা হিসেবে পরীক্ষা করাচ্ছে। এতে অধিকাংশ সময়ই রিপোর্ট নেগেটিভ আসছে। তাই অপব্যবহার রোধে এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে সরকার। ইউএনবি

Read Previous

কারাগারে আল্লামা সাঈদীর ১০ বছরঃ প্রধানমন্ত্রীর কাছে মুক্তি দাবী পুত্রের

Read Next

দক্ষিণ আফ্রিকার লেনেসিয়াতে গুলি করে এক বাংলাদেশীকে হত্যা

Leave a Reply

Your email address will not be published.