আবারো অস্থিরতা পেঁয়াজে

গতবছরের ন্যায় এই বছরেও একই সময়ে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় পেঁয়াজের দাম নিয়ে শুরু হয়েছে অস্থিরতা। গত কিছুদিন আগে ছুতো অজুহাতে  পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে আর এবার ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ার ঘোষনা দিতেই দেশের বাজারে অসাধু ব্যবসায়ীদের দাম বৃদ্ধির কারসাজি শুরু হয়ে যায়।

0
10

ডেস্ক রিপোর্ট  :

গতবছরের ন্যায় এই বছরেও একই সময়ে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় পেঁয়াজের দাম নিয়ে শুরু হয়েছে অস্থিরতা। গত কিছুদিন আগে ছুতো অজুহাতে  পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে আর এবার ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ার ঘোষনা দিতেই দেশের বাজারে অসাধু ব্যবসায়ীদের দাম বৃদ্ধির কারসাজি শুরু হয়ে যায়।

গতকাল ১৪ সেপ্টেম্বর ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষনা করার পর  দেশের বাজারে এর প্রভাব পড়তে শুরু করে।সকালে ভারতীয় যে নাসিক পেঁয়াজ খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছিলো ৪৫ -৫০ টাকা সেই একই পেঁয়াজ রাত নামতেই হয়ে যায় ৬০-৭০ টাকা। যদিও ভারত থেকে পেঁয়াজ দেশে আসতে সময় লাগে ২ দিন তবে কেনো এই দাম বৃদ্ধি; এমন প্রশ্নে এক পেঁয়াজ বিক্রেতা জানান, সংকটের মধ্যে সবাই বেশি নিলে দাম বাড়বে স্বাভাবিক। আর ক্রেতারা বলছেন এখন না নিলে দাম আরো বাড়লে তখন কিনতে কি করবো?

এরই মধ্যে গত রোববার থেকে ৩০ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে টিসিবি । আজ সকালে বাজার ঘুরে দেখা যায়,  বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজিতে। আর আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজে দাম বেড়েছে কেজিতে ২০ টাকা পর্যন্ত। বর্তমানে আমদানি করা পেঁয়াজ খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে। দাম বাড়ার কথা শুনে ফকিরাপুল বাজারে পেঁয়াজ কিনতে এসেছেন জামিলা বেগম, তিনি বলেন, এর আগে দাম বাড়তে বাড়তে ২শ পেরিয়ে যায়। এবারও হতে পারে তেমন। তাছাড়া পেঁয়াজ সব সময় প্রয়োজন তাই নেওয়া।

তবে পেঁয়াজের দাম বাড়ার জন্য বিক্রেতারা দুষছেন ক্রেতাদের । চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের এক ব্যবসায়ী বলেন,  খাতুনগঞ্জে জোয়ারের পানিতে কিছু  পেঁয়াজ পচে নষ্ট হয়ে গিয়েছে। এর মধ্যে ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা । আবার ক্রেতারাও হুজুগে বেশি বেশি পেঁয়াজ কিনছেন, এতে বাজারে এর প্রভাব পড়েছে। বলা যায়, ক্রেতারাই আজকের খুচরা বাজার চড়া করছেন।

এদিকে ভারত পেঁয়াজ  রপ্তানি বন্ধের আগে থেকেই বিকল্প দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির প্রক্রিয়া শুরু করেছিলো দেশের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা। সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীরা  বিশ্বের পাঁচটি দেশ থেকে এ পর্যন্ত ১২ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি নিয়েছেন ।

 

 

নিউজ৭১/জেএম/এআরএন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে