করোনা ও হৃদরোগে একদিনে আফ্রিকায় তিন প্রবাসীর মৃত্যু: কমিউনিটিতে শোকের ছাঁয়া

0
30
করোনা ও হৃদরোগে একদিনে আফ্রিকায় তিন প্রবাসীর মৃত্যু:

শাপলা টিভি রিপোর্টঃ
আজ ২রা জুলাই সাউথ আফ্রিকা ও মোজাম্বিকে একদিনের ব্যবধানে তিন প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা আক্রান্ত হয়ে দুই জন ও অপরজন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মোজাম্বিকে ইন্তেকাল করেছেন; ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন।

আজ বিকালে জোহানেসবার্গের গার্ডেন সিটি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন প্রবীণ প্রবাসী ও দক্ষিণ আফ্রিকায় অন্যতম ধনাঢ্য ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক।
সম্প্রতি তিনি করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন; সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছিলো।
রাতেই তার জানাযা শেষে ওয়েস্টপার্ক কবরস্থানে তাকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়। মরহুম আব্দুর রাজ্জাকের জানাযায় কমিউনিটির শীর্ষ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উনার দেশের বাড়ি কুমিল্লায় বলে জানা গেছে। তিনি প্রায় ত্রিশ বছর পূর্বে দক্ষিণ আফ্রিকায় এসেছিলেন এবং প্রবাসীদের মধ্যে তিনি প্রথম ব্যবসা বানিজ্য শুরু করেছেন বলে জানা যায়।

এদিকে, আজ সকালে জোহানেসবার্গ শহরের অদুরে সুয়েটোতে করোনা উপসর্গ নিয়ে কুমিল্লার আফজাল হোসেন নামে এক প্রবাসী যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
আফজাল হোসেন গত বেশ কয়েকদিন থেকে ঠান্ডা জনিত কারণে অসুস্থ ছিলেন। ডাক্তারের পরামর্শে ওষুধ সেবনের পাশাপাশি তিনি নিজ কর্মস্থলে ছিলেন। নিহত আফজালের বুকে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, হালকা জ্বর ছিল বলে সাউথ বাংলাকে জানিয়েছেন তার ঘনিষ্ঠ আত্মীয় জলিল। গতকাল অবশ্যই প্রচন্ড কাশির সাথে মুখ দিয়ে রক্ত গিয়েছিল বলেও তার ঘনিষ্ঠ আত্মীয় জানান। মরহুম আফজাল হোসেনের দেশের বাড়ি কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলায় বলে জানা গেছে।

এদিকে, আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিকের বালামা সিটির ব্যবসায়ী মোহাম্মাদ নাজিম উদ্দিন (৪৭) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ২ জুলাই শুক্রবার স্থানীয় সময় সকাল দশটায় মৃত্যুবরণ করেছেন।
বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়,মৃত মোহাম্মেদ নাজিম উদ্দিন মোজাম্বিকের ক্যাব দেলগাদো প্রদেশের বালামা সিটিতে দীর্ঘ দিন ধরে সফলতার সাথে ব্যবসা করে আচ্ছিলেন। কিন্তু কিছুদিন দিন আগে সে প্যারালাইজড রোগে আক্রান্ত হয়। স্থানীয় হাসপাতালে প্যারালাইজড-এর চিকিৎসায় কোন পরিবর্তন না হলে নিজাম উদ্দিন বাংলাদেশে চলে যাওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেয় এবং বিমানের টিকিটও করে ফেলে। কিন্তু দুঃখের বিষয় তার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে ফ্লাইটের দিন বিমান কতৃপক্ষ তার ফ্লাইট বাতিল করে। পরে তাকে নামপুলা সেন্ট্রাল হসপিতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তিনি হার্টঅ্যাটাক করেন।

মৃত মোহাম্মাদ নাজিম উদ্দিনের দেশের বাড়ি চট্রগ্রাম জেলা বাঁশখালী উপজেলার ১২নং ছনুয়া ইউনিয়ন ৮নং ওয়ার্ড খুদুকখালী বলে জানা গেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে