দক্ষিণ আফ্রিকায় সুবর্ণজয়ন্তী ক্রিকেট টূর্ণামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত: এসএ সুপার চ্যাম্পিয়ন

0
160

শাপলা টিভি স্পোর্টসঃ

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন জাতীয় কমিটির উদ্যোগে এবং আফ্রিকা বাংলা ক্রিকেট এসোসিয়শনের ব্যবস্থাপনায় ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল (৪ এপ্রিল) জোহানেসবার্গ শহরের জু’লেক ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলায় সভাপতিত্ব করেন সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব নোমান মাহমুদ।

উদযাপন কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সদস্য সচিব নুরুল আলম ও যুগ্ম সদস্য সচিব মোহাম্মদ হিমেলের পরিচালনায় খেলোয়াড় পরিচিতি ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় কমিটির উপদেষ্টা নজরুল ইসলাম সবুজ বাঙালী, যুগ্ম আহবায়ক বাবু শৈবাল বড়ুয়া, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল হান্নান, হালিম জামিল, উদযাপন কমিটির যুগ্ম সদস্য সচিববৃন্দ যথাক্রমে মোহাম্মদ নুরুল্ল্যাহ, মোহাম্মদ হাছান, কাজী জুয়েল, দেলোয়ার হোসেন রনি, রাসেল মিজি, মুরাদ খান, নির্বাহী সদস্য হাজী মোস্তফা, মোহাম্মদ জনি, হৃদয় খান, সঞ্জয় বড়ুয়া, শাকিল মাহমুদ প্রমুখ।

ফাইনাল ম্যাচের পূর্বে দুপুরে টুর্ণামেন্টের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত ম্যাচে ঘাউটেং প্রভিন্সের ওয়ারিয়র্স একাদশ নর্থওয়েস্ট প্রভিন্সের ভেন্টারর্সডর্প কিংস ইলেভেনকে পরাজিত করে ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়।

বিকালে টুর্ণামেন্টের ফাইনাল ম্যাচে জোহানেসবার্গ শহরের এস.এ সুপার কিংস ঘাউটেং প্রভিন্সের ওয়ারিয়র্স একাদশের মুখোমুখি হয়। প্রথমে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় এস.এ সুপার কিংস। শুরু হয় এস.এ সুপার কিংসের ব্যাটিং তান্ডব; দলের দুর্দান্ত ব্যাটসম্যান আরিফ মাত্র ৩৫ বলে ব্যক্তিগত ১০৪ রানের অপরাজিত এক অনবদ্য ইনিংস খেলেন। তার সাথে সোহাগ ২৫ রান করে অপরাজিত থাকেন; ফলে এস.এ সুপার কিংস নির্ধারিত ১০ ওভারে ১৬৮ রানের বিশাল স্কোর গড়ে তুলে।

বিশাল স্কোর তাড়া করতে দ্বিতীয়ার্ধে ব্যাটিংয়ে নামে ওয়ারিয়র্স একাদশ। শুরুটা ভালো করলেও মাঝপথে হোচট খায় ওয়ারিয়র্স, রানের গতি কমে গেলে লক্ষ্যে পৌছাতে ব্যর্থ হয় ওয়ারিয়র্স। উইকেট কিপার দলের জন্য সর্বোচ্চ ৫৪ রান করে সাজঘরে ফিরেন। শেষার্ধে আকবর ও বাবর এক অনবদ্য জুটি গড়ে তুলে জয়ের কাছাকাছি চলে যায় কিন্তু ততক্ষণে হাতে বল অবশিষ্ট নেই। আকবর অপরাজিত ৩৪ রান এবং বাবর অপরাজিত ৪৩ রানে দলকে টেনে ১৫১ রানে নিয়ে গেলেও পরাজিত হতে হয়।

ফাইনালে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ এবং ম্যাচ অব দ্যা সিরিজ নির্বাচিত হন এস.এ সুপার কিংসের আরিফ; তাকে ক্রেস্ট ছাড়াও জোহানেসবার্গের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ নুরুল্ল্যাহ ও হাছানের পক্ষ থেকে ১০০০ রেন্ড পুরস্কার দেয়া হয়। ফাইনাল ম্যাচে অপর হাফ সেঞ্চুরি করা ওয়ারিয়র্স একাদশের মাছুমকে নগদ ৫০০ রেন্ড পুরস্কার দেন জোহানেসবার্গের ব্যবসায়ী রাসেল মিজি।

উল্লেখ্য, সুবর্ণজয়ন্তী টুর্নামেন্টের টাইটেল স্পন্সর ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকার স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান- এস ডব্লিউ টি ট্রাভেলস্।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে