দ্বিতীয় দিনের মত চলছে নৌ-ধর্মঘট

চট্টগ্রামসহ সারাদেশে একযোগে নৌ ধর্মঘটের ফলে সারা দেশে নদীপথে পণ্য পরিবহন, লোড-আনলোড দ্বিতীয় দিনের মত বন্ধ রয়েছে। আড়াই হাজারের বেশি লাইটার জাহাজ, অয়েল ট্যাংকার, বাল্ক হেড অপেক্ষমাণ চট্টগ্রাম, মোংলা, পায়রা বন্দরের আশপাশের নদীতে। নৌ ধর্মঘটের দ্বীতিয় দিনেও লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়ন ও নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের কর্মবিরতির কারণে এসব জাহাজ থেকে পণ্য খালাস হচ্ছে না। বিদেশ থেকে গম, সার, তেল, পাথর, ক্লিংকার ইত্যাদি খোলাপণ্য নিয়ে আসা মাদার ভ্যাসেল হিসেবে পরিচিত বড় বড় জাহাজ অলস বসে আছে সাগরে।

0
7

ডেস্ক রিপোর্টঃ

চট্টগ্রামসহ সারাদেশে একযোগে নৌ ধর্মঘটের ফলে সারা দেশে নদীপথে পণ্য পরিবহন, লোড-আনলোড দ্বিতীয় দিনের মত বন্ধ রয়েছে। আড়াই হাজারের বেশি লাইটার জাহাজ, অয়েল ট্যাংকার, বাল্ক হেড অপেক্ষমাণ চট্টগ্রাম, মোংলা, পায়রা বন্দরের আশপাশের নদীতে। নৌ ধর্মঘটের দ্বীতিয় দিনেও লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়ন ও নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের কর্মবিরতির কারণে এসব জাহাজ থেকে পণ্য খালাস হচ্ছে না। বিদেশ থেকে গম, সার, তেল, পাথর, ক্লিংকার ইত্যাদি খোলাপণ্য নিয়ে আসা মাদার ভ্যাসেল হিসেবে পরিচিত বড় বড় জাহাজ অলস বসে আছে সাগরে। বাংলাদেশ শিপিং এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আহসানুল হক চৌধুরীর বলেন, একটি মাদার ভ্যাসেল একদিন অলস বসে থাকা মানে ১০-১৫ হাজার ডলার বাড়তি খরচ। বৈদেশিক মুদ্রার অপচয় শুধু নয়, মেরিটাইম ওয়ার্ল্ডে বাংলাদেশের ভাবমূর্তিও ক্ষুণ্ন হচ্ছে। নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নবী আলম বলেন, ১৯ অক্টোবর মধ্যরাত থেকে আমাদের কর্মবিরতি শুরু হয়েছে। আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। তাই নৌযান শ্রমিকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে কঠোর কর্মবিরতি পালন করছে। দাবি মেনে নিলে সব স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে