দ.আফ্রিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বৈঠকঃ নতুন যুগের সুচনা করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ

শীঘ্রই ঢাকায় দক্ষিণ আফ্রিকার কনস্যুলেট সেবা চালুর আশ্বাস

0
840
Dr. Momen with SA Dirco Minster Dr. Pandore

বিশেষ সংবাদদাতা, শাপলা টিভিঃ
দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ব্যস্ত সময় পার করেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে আব্দুল মুমিন। গত রবিবার রাতে দক্ষিণ আফ্রিকা আসলেও মূলত মঙ্গল ও বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রীদের সাথে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেছেন।

ড. এ.কে মোমেন গত (২৩ আগস্ট) দক্ষিণ আফ্রিকার কৃষি, ভুমি ও গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়ন মন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পরদিন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও সমন্বয় বিষয়ক (পররাষ্ট্র) মন্ত্রী ড. নালেদী পান্ডোর-এর সাথে গুরুত্বপুর্ণ বৈঠক করেছেন।

দুই দেশের মন্ত্রীদের মধ্যে অত্যন্ত সৌহার্দ্যপুর্ণ ও আন্তরিক পরিবেশে দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়ন ও দুই দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তর আলোচনা হয়। বিশেষকরে, বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক, বিনিয়োগ, আমদানী, রপ্তানী, সামাজিক নিরাপত্তা, নারী উন্নয়ন, দুতাবাস স্থাপন, বাংলাদেশীদের কিডন্যাপ-খুন, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন, কভিড ভ্যাকসিন, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে একসাথে কাজ করা সহ নানাবিধ বিষয়ে দুই মন্ত্রীর মধ্যে মতবিনিময় হয়।

প্রিটোরিয়ার ও.আর. থাম্বো বিল্ডিংয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে মোমেন সহ প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানান দক্ষিণ আফ্রিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. নালেদী পান্ডোর। বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের মধ্যে ছিলেন প্রিটোরিয়াস্থ বাংলাদেশের হাইকমিশনার নূরে হেলাল সাইফুর রহমান, দক্ষিণ আফ্রিকা বিষয়ক বাংলাদেশ মিশনের ডাইরেক্টর মাহবুবুর রহমান, পররাষ্ট্র দপ্তরের কর্মকর্তা ইমদাদুল হক।

Joint Communiqué issued by Dr GNM Pandor and Dr AK Abdul Momen

বৈঠকের শুরুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে বাংলাদেশের বন্ধুপ্রতীম সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন। তিনি বাংলাদেশের ২৫বছর পুর্তিতে ১৯৯৭ সালের মার্চ মাসে দক্ষিণ আফ্রিকার অবিসংবাদিত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার বাংলাদেশ সফরের কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন।
ড. মোমেন আরো বলেন, চলতি বছরে বাংলাদেশ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন করছে। তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারকে বিনিয়োগের আহবান জানান।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের সামাজিক নিরাপত্তা ও খাদ্যে স্বয়ংসম্পুর্ণতা অর্জনে কথা উল্লেখ করে দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে কাজ করার আগ্রহ ব্যক্ত করেন।

বৈঠকে দক্ষিণ আফ্রিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. পান্ডোর স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের জন্য বাংলাদেশ সরকার ও জনগণকে শুভেচ্ছা জানান। তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন উন্নয়ন-অগ্রগতির ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং নারী ক্ষমতায়নে এগিয়ে আসায় বাংলাদেশকে ধন্যবাদ জানান।

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশীদের ক্ষুদ্র ব্যবসায় অবদানের কথা উল্লেখ করে ড. পান্ডোর কিডন্যাপ ও হত্যা বন্ধ সহ আইনশৃঙ্খলা উন্নয়নে তার সরকার কাজ করছে বলে জানান।
তিনি বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশে দুতাবাস স্থাপনে সংসদীয় কমিটির অপারগতার কথা জানিয়েছেন তবে শীঘ্রই ঢাকায় দক্ষিণ আফ্রিকার কনস্যুলেট সেবা চালুর আশ্বাস দিয়েছেন।

গত দুই দিন মন্ত্রী পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ দুই বৈঠকের পর দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলে মনে করছেন শাপলা টিভি’র প্রধান নির্বাহী নোমান মাহমুদ।
তিনি বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই সফর অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ এবং এর মাধ্যমে বাংলাদেশ একটি নতুন যুগের সুচনা করতে যাচ্ছে।

মন্ত্রীদের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ে প্রতিবছর একটি বৈঠক অব্যাহত রাখলে এই সম্পর্ক আগামীতে আরো বেশি জোরদার হবে এবং এতে প্রবাসীরা সহ দুই দেশের জনগন উপকৃত হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে