প্রকৃতির এক বিস্ময়ের নাম টেবিল মাউন্টেন

0
258

আদনান আহমেদ, কেপটাউন প্রতিনিধিঃ

সাউথ আফ্রিকার কেপটাউনের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হচ্ছে টেবল মাউন্টেন নামক এক পর্বত। দক্ষিন আফ্রিকার অন্যতম শহর কেপটাউনে অবস্থিত টেবিল মাউন্টেন পর্বত। এই টেবল মাউন্টেন প্রাকৃতিক সপ্তম আশ্চর্যের একটি হয়েছিল। এটি ইউনেসকোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায়ও স্থান করে নিয়েছে।

Table mountain, SA

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত শহর কেপটাউনে অবস্থিত সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩,৫৬৩ ফুট উঁচুতে টেবিল মাউন্টেন। এখান থেকে নিচে তাকালে দেখা যায় আটলান্টিক মহাসাগর এবং এর তীরে অবস্থিত কেপটাউন শহরের অপরূপ সৌন্দর্য।

টেবিল মাউন্টেন পর্বতটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এক হাজার ৮৬ মিটার বা ৩৫৬৩ ফুট উঁচু এই পর্বতটি কিন্তু একটি নয় বরং কয়েকটি পর্বতের সমষ্টি। প্রায়ই মেঘে ঢাকা থাকে পর্বতের চূড়াটি। পর্বতের দুটি চূড়া রয়েছে। একটি পূর্বের ডেভিল পার্ক ও অপরটি লায়ন’স হেড। প্রায় ২ দুই হাজার ২০০ প্রজাতির বৃক্ষ রয়েছে এখানে। শুধু তাই নয়, এখানে বহু পশুপাখি এবং রয়েছে অনেক স্তন্যপায়ীর বসবাস।

দূর থেকে দেখলে মনে হয় পর্বতে জমা যেন আকাশের মেঘ! মজার বিষয় হচ্ছে, দেখলে আরও মনে হবে যে পুরো কেপটাউন শহরটিকে এক নিরাপত্তার বেষ্টনিতে আটকে রেখেছে সুন্দর এই পর্বতটি, যেন শহরের গায়ে হেলানো একটি দেয়াল! ৬০ কোটি বছর আগে থেকেই এই টেবিল-পর্বত এখানে থাকলেও আফ্রিকার বাইরের মানুষের প্রথম নজরে এসেছে ১৫০০ সালের দিকে। পর্তুগীজ অভিযাত্রী অ্যান্টোনিও ডি সালদানা এই পর্বতের নাম দেন ‘টেবল মাউন্টেন’ সেই ১৫০৩ সালে। এই পর্বতের সর্বোচ্চ শিখরের নাম ম্যাকলিয়ার’স বিকন।

Table mountain cable car, South Africa

টেবিল মাউন্টেন পর্বতে পর্যটকেরা কেবল কার, হাইকিং, কেভিং, মাউন্টেন বাইকিং, রক ক্ল্যাইম্বিং ইত্যাদির মতো চিত্তবিনোদনমূলক মাধ্যমগুলো উপভোগ করতে পারেন।


– লেখক, প্রতিনিধি- শাপলা টিভি, কেপটাউন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে