বগুড়ার মাঠে শস্য চিত্রে বঙ্গবন্ধুঃ স্থান পেয়েছে গিনেজ বুক ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে!

0
28

মাহিদুল হাসান মাহি, বগুড়া থেকেঃ
বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের বালেন্দা গ্রামে ধানের খেতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেয়েছে। সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র (লার্জেস্ট ক্রপ ফিল্ড মোজাইক) ক্যাটাগরিতে গিনেজ রেকর্ডসে জায়গা করে নিয়েছে প্রতিকৃতিটি।

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে শেরপুরের বালেন্দা গ্রামে ১২০ বিঘা জমিতে দুই জাতের ধান লাগিয়ে তৈরি করা হয়েছে বঙ্গবন্ধুর সবচেয়ে বড় এই প্রতিকৃতি।

গণমাধ্যমকর্মীদের নিশ্চিত করেছেন শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু জাতীয় পরিষদের পৃষ্ঠপোষক এবং প্রধান সমন্বয়ক আ,ফ,ম বাহাউদ্দিন নাছিম।তিনি বলেন, এই রেকর্ড আমাদের দেশের সবার অর্জন। গত (১৬ ই মার্চ) মঙ্গলবার বিকেল ০৩ :৪৫ ঘটিকার সময় গিনেজ কর্তৃপক্ষ ইমেইলে বিষয়টি আমাদের জানায়। তাদের ওয়েবসাইট ও বিষয়টি প্রকাশ করা হয়েছে।

আগামী (১৭ই মার্চ) বুধবার বাংলাদেশ সময় একটায় একটি ওয়েবনিয়ারে তারা আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিবে, বলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এই নেতা বলেন।

গত (২৯ জানুয়ারি ২০২১) আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাসিম,প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু জাতীয় পরিষদের উপদেষ্টা এবং বাংলাদেশ কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ্র, সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়, বগুড়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান, বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু, সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু প্রমূখ। বিশাল এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিয়াকত আলী শেখ, ভবানীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, শেরপুর উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা কৃষকলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা লিটন, ভবানীপুর ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি মোঃ রাকিবুল ইসলাম রাকিব সহ প্রমুখ।

স্থানীয় ও বিভিন্ন জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জনপ্রতিনিধিরা প্রকল্পটির উদ্বোধন করেন। এই পুরো প্রকল্পের ভাবনা, নকশা এবং বাস্তবায়ন করেছে এক্সপ্রেসিভ কমিউনিকেশনস লিমিটেড। আর অর্থায়ন করেছে ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার গ্রুপ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে