হৃদরোগে মারা গেছেন দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী এক রেমিট্যান্স যোদ্ধা, করোনা উপসর্গ ছিলো

শাপলা টিভি রিপোর্টঃ

দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ শহরের অদুরে ভসলুরাজ এলাকায় গত রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় এক বাংলাদেশী মারা গেছেন।

নিহত ব্যক্তির নাম হানিফ মোল্লা (৪০)। তার দেশের বাড়ি ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার দক্ষিণ কুহুমা গ্রামে। তিনি দীর্ঘদিন থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় নিজস্ব ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিলেন।

প্রায় মাস খানেক ধরে তিনি বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। সম্প্রতি তারা শরীরে বিভিন্ন রোগ দেখা দিলে জোহানেসবার্গ শহরে প্রাইভেট ডাক্তার দিখিয়ে ঔষধ সেবন করছিলেন। গত দুই দিন থেকে তার জ্বর কাশি দেখা দেয়। মাঝেমধ্যে তার শ্বাসকষ্ট হতো। কিন্তু তিনি করোনা টেস্ট করেন নি কিংবা হাসপাতালে ভর্তি হন নি।

বাসায় অবস্থানরত অন্য বাংলাদেশীরা জানিয়েছেন, গত রাত ৯টার দিকে তাদের সাথে কথা হয়েছে, তাকে চা সহ গরম পানি দেয়া হয়েছে। রাতে তিনি ঘুমিয়ে পড়লে কোন এক সময় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। সকালে ঘুম থেকে উঠে রুমমেটরা তাকে ডাকতে গেলে মৃত অবস্থায় দেখতে পান তারা। এসময় তারা তার মুখে ফেনা দেখতে পেয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি হার্ট অ্যাটাক হয়ে মৃত্যু মুখে পতিত হয়েছেন। 

প্রবাসী বাংলাদেশী ডাক্তার এসকে সাহা বলেন, করোনা উপসর্গ থাকলেও অনেকের এসময় হার্ট অ্যাটাক হতে পারে।

সাংবাদিক নুরুল আলম জানান, নিহত হানিফ আমার খুব কাছের মানুষ ছিলেন। আমাদের ধারনা তিনি হার্ট অ্যাটাক করে মারা গেছেন। তিনি বিভিন্ন উপসর্গে ভুগলেও অনেকটাই সুস্থ ছিলেন। হয়তো ভেবেছিলেন ডাক্তারের পরামর্শে ঔষধ খেয়ে সেরে উঠবেন। কিন্তু তিনি করোনা টেস্ট করেন নি।

তিনি আরো জানান, নিহত হানিফের মরদেহ লেনেসিয়াতে মরচুয়ারিতে রাখা হয়েছে। কার্গো বিমানে লাশ দেশে পাঠানোর চেষ্টা করছে মরচুয়ারি কর্তৃপক্ষ।

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী এই রেমিট্যান্স যোদ্ধার মৃত্যুতে শোকাবত বাংলাদেশী কমিউনিটি।  নিহতের জন্য দোয়া চেয়েছেন তার ঘনিষ্টজন।

Read Previous

সিলেটে সাংবাদিকদের করোনা প্রতিরোধ সামগ্রী দিলো এপেক্স ও আব্দুল্লাহ ট্রাস্ট

Read Next

আন্তর্জাতিক হজ্ব বাতিল করে যে সিদ্ধান্ত নিলো সৌদি আরব

Leave a Reply

Your email address will not be published.