বিশ্বের বৃহৎ “মুক্ত বাণিজ্য অঞ্চল” হচ্ছে আফ্রিকা; অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও শান্তির পথ উন্মোচিত হবে

শাপলা টিভি ডেস্কঃ
গতকাল ৭ জুলাই আফ্রিকা মহাদেশের সকল রাষ্ট্রের জন্য ছিলো একটি ঐতিহাসিক দিন। দীর্ঘ ১৭বছরের প্রচেষ্টার ফসল হিসেবে গতকাল নাইজেরিয়ার নাইজারে আফ্রিকান ইউনিয়নের সম্মেলনে ঘোষণা হয় আফ্রিকার “মুক্ত বাণিজ্য”। যেখানে ৫৪টি আফ্রিকান দেশের রাষ্ট্রপ্রধানগণ স্বাক্ষর করেন।

ফলে এটিই হচ্ছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ মুক্ত বাণিজ্য অঞ্চল। এটি সফল হলে, আফ্রিকার ১৩০ কোটি মানুষ একত্রিত হয়ে ৩.৪ ট্রিলিয়ন ডলারের একটি মুক্ত অর্থনৈতিক এলাকা তৈরি করবে, যা আফ্রিকা অঞ্চলের সমৃদ্ধি ও শান্তির নতুন পথ রচনা করবে।

বর্তমানে আফ্রিকার দেশগুলোর নিজেদের মধ্যে মাত্র ১৬ শতাংশ বাণিজ্য হয়, এর বিপরীতে ইউরোপের দেশগুলোর নিজেদের মধ্যে বাণিজ্য প্রায় ৬৫ শতাংশ।

নতুন মুক্ত বাণিজ্য চুক্তিতে সিংহভাগ পণ্যের ওপর শুল্ক ও কর প্রত্যাহারে ঐক্যমত্য হয়েছে, এবং ধারনা করা হচ্ছে এর ফলে মধ্যমেয়াদে আফ্রিকায় আন্ত:বাণিজ্য ১৫ থেকে ২৫ শতাংশ বেড়ে যাবে।

অন্যান্য কিছু মতভেদ দুর হলে বাণিজ্যের পরিমাণ দ্বিগুণ হবে বলে ধারনা করছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল বা আইএমএফ।

আইএমএফ বলছে, এই বাণিজ্য চুক্তি আফ্রিকার চেহারা বদলে দিতে পারে, এবং যেভাবে এ ধরনের মুক্ত বাণিজ্য ইউরোপ এবং উত্তর আমেরিকার উন্নয়নকে তরান্বিত করেছে, আফ্রিকাতেও তার পুনরাবৃত্তি ঘটতে পারে ।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, শুধু শুল্ক প্রত্যাহার করলেই যে আফ্রিকায় কাঙ্ক্ষিত সুফল আসবে তা এখনও নিশ্চিত নয়। তারা বলছেন, এই মহাদেশের দুর্বল সড়ক এবং রেল নেটওয়ার্ক, রাজনৈতিক এবং জাতিগত অস্থিরতা এবং হানাহানি এবং সেইসাথে আমলাতান্ত্রিক জটিলতার সমস্যাগুলোর সমাধান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এপ্রিলে নতুন এই মুক্ত বাণিজ্য এলাকা গঠনে ফয়সালা হয়ে গেলেও আফ্রিকার বৃহত্তম অর্থনীতি নাইজেরিয়ার সিদ্ধান্তহীনতায় তা আটকে ছিল। তবে নাইজেরিয়া ও বেনিন গতকাল এ.ইউ সম্মেলনে এই চুক্তিতে সই করে।

৫৪টি দেশের মধ্যে এখন পর্যন্ত ২৫টি দেশের পার্লামেন্টে চুক্তিটি অনুমোদিত হয়েছে। ফলে এটি পুরোপুরি কার্যকরী হতে আরো কিছু সময় লাগবে।

এদিকে, আফ্রিকান ইউনিয়নের ১২তম বিশেষ সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সাইরেল রামাপোসা সহ আরো কয়েকজন মন্ত্রী।
সম্মেলনে ৩২জন রাষ্ট্রপ্রধান এবং ১০০শ’র উপর বিভিন্ন দেশের মন্ত্রীগণ সহ প্রায় ৪৫০০জন অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

এই সম্মেলন আফ্রিকা অঞ্চলের জন্য একটি ঐতিহাসিক মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে। পিছিয়ে পড়া আফ্রিকা অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তিটি একটি গেইম চেঞ্জ হিসেবে দেখছেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান।

0 Reviews

Write a Review

shaplatv

Read Previous

কেপটাউনে একই পরিবারের ৬ নারীকে হত্যা; এখনো রহস্য উদযাটন করতে পারেনি পুলিশ

Read Next

দুর্নীতির অজুহাতে ৪ বছর পর বন্ধ হলো কেপটাউনের পাসপোর্ট হেল্প সেন্টার; প্রবাসীরা ক্ষুব্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *