রাত পোহালেই বৃটেনে ইলেকশন: মুক্তি নাকি সংকট

নোমান মাহমুদ, শাপলা টিভি:
সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ব্রেক্সিট ইস্যুতে কার্যত বৃটেনের রাজনীতি বিভক্ত হয়ে পড়েছে। ২০১৬ সালের পর থেকে ব্রেক্সিট নিয়ে বৃটেনের পার্লামেন্ট এবং রাজনৈতিক দলগুলোতে যে পরিমাণ অস্থিরতা, দূরত্ব এবং তিক্ততা তৈরি হয়েছে, তার নজির অতীতে দেখা যায় নি।
সরকার এবং বিরোধীদল শুধু নয় নিজ নিজ দলের এমপিদের মাঝেও অনেকে দল ছেড়েছেন, অনেকেই রাজনীতি থেকে অবসর নিয়েছেন শুধু মাত্র ব্রেক্সিট বিতর্কে।
ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে বের হওয়ার জন্য গণভোটে পাশ হলেও চুক্তি নাকি চুক্তি ছাড়া বের হবে-এই ইস্যুতেই বিভক্ত হয় বৃটেন।

বিগত তিন বছরের চড়াই উৎরাই পেরিয়ে আবারো জাতীয় নির্বাচন। কাল ১২ ডিসেম্বর এই নির্বাচনে মূল প্রতিদ্বন্ধিতা হবে মুলত কনজারভেটিভ এবং লেবার পার্টির মধ্যে। কালকের নির্বাচন মূলত ব্রেক্সিট ইস্যুকে সামনে রেখে। কারণ পার্লামেন্টে একক সংখ্যাগরিষ্টতা ছাড়া ব্রেক্সিট “ডিল” অথবা নো ডিল- এর কোনটাই পাশ করানো যাচ্ছে না। আর ব্রেক্সিট ইস্যুতেই আটকে আছে বৃটেনের অর্থনীতি। বিনিয়োগ সহ অর্থনৈতিক কর্মকান্ডগুলো কিন্তু ব্রেক্সিটের কারণে স্থবির হয়ে আছে। তাছাড়াও রাজনৈতিক অস্থিরতাও বৃদ্ধি পেয়েছে।

দ্বিধাবিভক্ত পার্লামেন্টের রেশ স্থানীয় পর্যায়ে পড়েছে। জনগনের মধ্যে রাজনীতি নিয়ে এক ধরণের নাভিশ্বাসের তৈরি হয়েছে। রাজনীতিবিদদের প্রতি জনগণের অনাস্থা তৈরি হয়েছে। গণতন্ত্রের ঐতিহ্য রক্ষাকারী বৃটেন আজ গনতন্ত্রের পূর্ণ চর্চা করতে পারছে না। পার্লামেন্ট স্থগিত করা হয়েছিলো; ব্রেক্সিট ইস্যুটি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছিলো যা বৃটেনের গনতন্ত্রের জন্য অশনিসংকেত।

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে নিম্নকক্ষে আসন সংখ্যা ৬৫০টি। স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে হলে কোন একটি দলকে ৩২৬টি আসন পেতে হবে। তাই বরিস জনসন বা জেরেমি করবিন – দুজনেরই আসল লক্ষ্য হচ্ছে শুধু সবচেয়ে বেশি আসনে জেতা নয় – একটা স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া।

সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ১২ ডিসেম্বরের নির্বাচন বৃটেনের জন্য গত ৭০ বছরের ইলেকেশনের চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ এবং অর্থবহ। এই নির্বাচনে কনজারভেটিভ কিংবা লেবার পার্টি যদি একক সংখ্যাগরিষ্টতা না পায়, তবে আবারো সংকটে পড়বে বৃটেনের রাজনীতি; গভীর খাদে পড়ে যাবে ব্রেক্সিট ইস্যু।

0 Reviews

Write a Review

shaplatv

Read Previous

খালেদা জিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট দাখিলঃ জামিনের অপেক্ষা

Read Next

সড়ক দুর্ঘটনায় দঃআফ্রিকাতে দুই সহোদর নিহত, গুরুতর আহত ৩

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *