একদিনের ব্যবধানে দক্ষিণ আফ্রিকায় ৫ বাংলাদেশীর মৃত্যু: কমিউনিটিতে শোকের ছায়া

0
780
1
5 BD ppl died in SA

শাপলা টিভি রিপোর্ট:
দক্ষিণ আফ্রিকার বিভিন্ন শহরে গত ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে ৫ বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে তিন জন করোনা আক্রান্ত হয়ে এবং দুই জন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

ঘাউটেং প্রদেশে কল্লোল বড়ুয়ার মৃত্যু
গত রাতে (২৬ আগস্ট) জোহানেসবার্গ শহরের অদুরে স্প্রিংস এলাকার প্রবীণ ব্যবসায়ী দোলন বড়ুয়া কল্লোল হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন। উনার দেশের বাড়ি চট্টগ্রামের রাউজান থানার গুজারা ইউনিয়নে। তিনি বাংলাদেশ বুড্ডিষ্ট কমিউনিটি ফোরাম অব সাউথ আফ্রিকার উপদেষ্টা ছিলেন।
বাবু দোলন বড়ুয়ার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বুড্ডিষ্ট কমিউনিটি ফোরামের সভাপতি শৈবাল বড়ুয়া ও সাধারণ সম্পাদক বিকন বড়ুয়া এবং মুক্তবাংলা পরিষদের আহবায়ক শফিকুল ইসলাম।

নর্থওয়েস্ট প্রদেশে সিলেটের বাসিন্দার মৃত্যু
গতরাতে নর্থওয়েস্ট প্রভিন্সের ওলমারানস্ট্যাড এলাকায় করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন আব্দুস সামাদ। উনার দেশের বাড়ি সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার মাইজগ্রাম শাহগলি এলাকায়। তিনি দীর্ঘদিন থেকে ওলমারানস্ট্যার্ড এলাকায় ব্যবসা বাণিজ্য করে আসছিলেন।
মরহুমের জানাযা ও দাফনের প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন কমিউনিটি নেতা মোহাম্মদ আলী।

ব্লুমফন্টেইনে প্রবাসীর মৃত্যু
ফ্রিস্টেট প্রভিন্সের ব্লুমফন্টেইন শহরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সারওয়ার আলম নামে অপর বাংলাদেশী ইন্তেকাল করেছেন। গতকাল দুপুরে নিজ দোকানে হঠাৎ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন সারওয়ার। উনার দেশের বাড়ি ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ফতেহপুর গ্রামে।

আপিংটন, নর্দার্ণকেপ প্রভিন্স
দক্ষিণ আফ্রিকার আপিংটন এলাকায় করোনা আক্রান্ত হয়ে গত রাতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন নাসির উদ্দিন নামে এক বাংলাদেশী। উনার দেশের বাড়ি লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জে।
আজ বিকালে মরহুমের জানাযা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে সমাহিত করা হয়। এসময় প্রবাসী বাংলাদেশীর জানাযায় অংশগ্রহণ করেন।

ডারবানে প্রবীন বাংলাদেশীর ইন্তেকাল
গতকাল (২৫ আগস্ট) সন্ধ্যার পর কোয়াজুলু নাটাল প্রদেশের ডারবানে করোনা চিকিৎসাধীন অবস্থায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অপর বাংলাদেশী ইন্তেকাল করেছেন; ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন।
মৃত্যুবরণকারী এই রেমিট্যান্স যোদ্ধার নাম রিয়াজ উদ্দিন (৪৫)। উনার দেশের বাড়ি কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলায় বলে জানা গেছে। তিনি প্রায় ১১ বছর ধরে ডারবানে বসবাস করে আসছিলেন এবং কয়েকবছর যাবত হ্যালো পয়সা কোম্পানীতে চাকুরীরত ছিলেন। বাংলাদেশে উনার ১০বছরের এক কন্যা সন্তান রয়েছে।মরহুমের দাফনের প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন ডারবান প্রবাসী সেইফ বাংলাদেশী সংগঠনের ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য মোক্তার হোসেন। তিনি বলেন, ডারবান এলাকার অত্যন্ত সুপরিচিত রিয়াজ উদ্দিনের মৃত্যুতে কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তিনি মরহুমের মাগফিরাত কামনায় এবং পরিবারের সকরের জন্য প্রবাসীদের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে